মাসের সর্বাধিক বিক্রি হওয়া বাইক, আপনার কাছেও নিশ্চই রয়েছে

হিরো মোটোকর্প স্প্লেন্ডার প্লাস ১০০ সিসি সেগমেন্টের সবচেয়ে জনপ্রিয় বিক্রিত বাইকগুলির মধ্যে অন্যতম। জুলাই মাসে মোট ২,৫০,৪০৯ জন এই বাইকটি কিনেছেন এবং এটি মাসের সর্বাধিক…

Published By: Pritam Santra | Published On:
Advertisements

হিরো মোটোকর্প স্প্লেন্ডার প্লাস ১০০ সিসি সেগমেন্টের সবচেয়ে জনপ্রিয় বিক্রিত বাইকগুলির মধ্যে অন্যতম। জুলাই মাসে মোট ২,৫০,৪০৯ জন এই বাইকটি কিনেছেন এবং এটি মাসের সর্বাধিক বিক্রিত বাইকের তকমা পাচ্ছে।

Advertisements

জনপ্রিয় বাইক নির্মাতা হিরো মোটোকর্প তার সর্বাধিক বিক্রিত হিরো স্প্লেন্ডারের একটি নতুন সংস্করণ চালু করেছে। এর ইঞ্জিন আগের থেকে আরও শক্তিশালী এবং আরও বেশি ফিচার সম্পন্ন। মাইলেজ যথারীতি খুব ভালো। নতুন এই বাইকের নাম হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস এক্সটেক।

Advertisements

হিরো মোটোকর্প ক্রমাগত ভারতে তার বাইকের পরিসীমা প্রসারিত করছে। বাইকের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে প্রযুক্তিও এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে কোম্পানি। এক্সটেক রেঞ্জ এডিশনে রয়েছে ইন্টিগ্রেটেড ইউএসবি চার্জার, আইথ্রিএস টেকনোলজি সহ সাইড স্ট্যান্ড ইঞ্জিন কাট অফ।

ব্লুটুথ কানেক্টিভিটি, কল ও এসএমএস অ্যালার্ট, আরটিএমআই রিয়েল টাইম মাইলেজ ইন্ডিকেটর, লো ফুয়েল ইন্ডিকেটর, হাই ইনটেনসিটি এলইডি ল্যাম্প হিরোর এক্সটেক বাইকের অন্যতম প্রধান কিছু ফিচার।

সম্প্রতি কোম্পানি এই প্রযুক্তির সাথে দুটি সাশ্রয়ী মূল্যের বাইক লঞ্চ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস এক্সটেক এবং হিরো প্যাশন এক্সটেক। এই হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস এক্সটেক-এ সিঙ্গেল সিলিন্ডার ৯৭.২ সিসি বিএস৬ ইঞ্জিন দিয়েছে কোম্পানি। এই ইঞ্জিনটি এয়ার কুল্ড। ইঞ্জিনটি ৭০ আরপিএম-এ সর্বোচ্চ ৭.৯ বিএইচপি পাওয়ার এবং ৬০০০ আরপিএম-এ ৮.০৫ এনএম টর্ক উৎপন্ন করে। দিল্লিতে এর এক্স-শোরুম দাম ৭২,৯০০ টাকা।

Hero splendor plus xtec

হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস এক্সটেক একই ১১০ সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, এয়ার-কুল্ড, এফআই ইঞ্জিন দ্বারা চালিত। ৭,৫০০ আরপিএম-এ ৯ বিএইচপি পাওয়ার এবং ৫,০ আরপিএম-এ ৯.৭৯ এনএম পিক টর্ক উৎপন্ন করে। নতুন হিরো প্যাশন এক্সটেকের ড্রাম ব্রেক ভ্যারিয়েন্টের দাম ৭৪,৫৯০ টাকা এবং ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেক ভ্যারিয়েন্টের দাম ৭৮,৯৯০ টাকা।

Advertisements