Honda vs TVs vs Bajaj : তিন কোম্পানির সেরা তিনটি বাইকে, কেনার আগে অবশ্যই দেখে নেবেন

হোন্ডা মোটরসাইকেল অ্যান্ড স্কুটার ইন্ডিয়া তাদের লাইনআপ সম্প্রসারণের জন্য Honda SP160 বাইকটি লঞ্চ করেছে। নতুন এই বাইকটির এক্স শোরুম মূল্য রাখা হয়েছে ১.১৮ লক্ষ টাকা।…

Published By: Pritam Santra | Published On:
Advertisements

হোন্ডা মোটরসাইকেল অ্যান্ড স্কুটার ইন্ডিয়া তাদের লাইনআপ সম্প্রসারণের জন্য Honda SP160 বাইকটি লঞ্চ করেছে। নতুন এই বাইকটির এক্স শোরুম মূল্য রাখা হয়েছে ১.১৮ লক্ষ টাকা। ইউনিকর্ন ও এক্স-ব্লেডের পর এটি কোম্পানির তৃতীয় ১৬০ সিসি বাইক। হোন্ডার এই বাইক TVS Apache RTR 160 এবং Bajaj Pulsar 150 এর সাথে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। এই পরিস্থিতিতে গ্রাহকদের মনে প্রশ্ন থাকবে, কোনো বাইকটি তুলনামূলকভাবে ভালো। তার জন্য আগে জানতে হবে কোন বাইকে রয়েছে কেমন ফিচার। চলুন সেটা জেনে নেওয়া যাক।

Advertisements

২০২৩ সালের Honda SP160 -এ রয়েছে ১৬২.৭ সিসি সিঙ্গেল সিলিন্ডার, এয়ার-কুল্ড, ফুয়েল ইনজেক্টেড ইঞ্জিন যা ১৩.২ বিএইচপি পাওয়ার এবং ১৪.৫ এনএম টর্ক উৎপন্ন করে। TVS Apache RTR 160 একটি ১৫৯.৭ সিসি ইঞ্জিন দ্বারা চালিত যা ১৫.৮ বিএইচপি পাওয়ার এবং ১৩.৮ এনএম টর্ক উত্পাদন করে। Bajaj Pulsar 150 একটি ১৪৯.৫ সিসি ইঞ্জিন দ্বারা চালিত যা ১৩.৮ বিএইচপি এবং ১৩.২ এনএম টর্ক উত্পাদন করতে সক্ষম। তিনটি বাইকেই রয়েছে ৫ স্পিড ম্যানুয়াল গিয়ারবক্স।

Advertisements

আরো কিছু ফিচার:-

Honda SP 160

• হোন্ডা এসপি১৬০ এর দৈর্ঘ্য ২০৬১ মিমি, প্রস্থ ৭৮৬ মিমি, উচ্চতা ১১১৩ মিমি, হুইলবেসে ১৩৪৭ মিমি, গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সে ১৭৭ মিমি এবং সিট উচ্চতা ৭৯০ মিমি। এর কার্ব ওজন ১৩৯ থেকে ১৪১ কেজি এবং এতে ১২ লিটারের ফুয়েল ট্যাঙ্ক রয়েছে।

• অ্যাপাচি আরটিআর ১৬০ এর দৈর্ঘ্য ২,০৮৫ মিমি, প্রস্থে ৭৩০ মিমি, উচ্চতা ১,১০৫ মিমি, হুইলবেসে ১,৩০০ মিমি, গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সে ১৭৭ মিমি এবং সিট উচ্চতায় ৭৯৬ মিমি। এর কার্ব ওজন ১৩৭ থেকে ১৩৮ কেজি এবং এতে ১২ লিটার জ্বালানী ট্যাঙ্ক রয়েছে।

• পালসার ১৫০ এর দৈর্ঘ্য ২০৫৫ মিমি, প্রস্থে ৭৬৫ মিমি, উচ্চতা ১০৬০ মিমি, হুইলবেসে ১৩২০ মিমি, গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সে ১৬৫ মিমি এবং সিট উচ্চতায় ৭৮৫ মিমি। এর কার্ব ওজন ১৪৮ থেকে ১৫০ কেজি এবং এতে ১৫ লিটার ফুয়েল ট্যাঙ্ক রয়েছে।

• এই তিনটি বাইকে রয়েছে টেলিস্কোপিক ফ্রন্ট ফোর্ক। এসপি ১৬০ এর পিছনে একটি মনো শক রয়েছে। পালসার এবং অ্যাপাচিতে ডুয়াল গ্যাস-চার্জড শক রয়েছে। সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পিছনে ডিস্ক / ড্রাম ইউনিট সহ সিঙ্গেল চ্যানেল এবিএস তিনটি ফ্রন্টে ব্রেকিংকে আরো ভালো করতে সাহায্য করে। ফিচারের দিক থেকে পালসার ১৫০ এ রয়েছে একটি হাফ ডিজিটাল ক্লাস্টার, এসপি ১৬০ এবং অ্যাপাচি আরটিআর ১৬০ এ আপনি পাবেন একটি সম্পূর্ণ ডিজিটাল কনসোল।

• নতুন হোন্ডা এসপি ১৬০-এর দিল্লির এক্স-শোরুম মূল্য ১.১৮ লক্ষ থেকে ১.২২ লক্ষ টাকার মধ্যে। টিভিএস অ্যাপাচি আরটিআর ১৬০ ৪ভি-র এক্স-শোরুম মূল্য ১.২০ লক্ষ থেকে ১.২৬ লক্ষ টাকার মধ্যে। বাজাজ পালসার ১৫০ এর দাম ১.১৮ লক্ষ থেকে ১.২১ লক্ষ টাকার মধ্যে।

Advertisements