আপনাকে নকল ফোন ধরিয়ে দেয়নি? পয়সা দিয়ে কেনার আগে সাবধান, এই ফিচারগুলো ফোনের পরিচয়

এখন বাজারে প্রায় সব ভালো জিনিসের নকল পাওয়া যায়। বলা বাহুল্য নকলের মান কখনও আসলের মতো হয় না। আসলে আসলের থেকে কোনো ভাবেই টেক্কা দিতে…

Published By: Pritam Santra | Published On:
Advertisements

এখন বাজারে প্রায় সব ভালো জিনিসের নকল পাওয়া যায়। বলা বাহুল্য নকলের মান কখনও আসলের মতো হয় না। আসলে আসলের থেকে কোনো ভাবেই টেক্কা দিতে পারবে না কোনো ডুপ্লিকেট বা নকল কপি। বললে হয়তো সবাই বিশ্বাস করবেন না যে আইফোনের নকল এখন বাজারে ছেয়ে যাচ্ছে। দেখতে হয়তো একদম আসল আইফোনের মতো। ব্যবহার করার পর বোঝা যাচ্ছে গল্প অন্য। বুঝবেন কি করে কোনো আসল আইফোন আর কোনটা নকল আইফোন? এই গুরুতর ব্যাপারে নিয়েই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন।

Advertisements

আপনি যদি কোনও আইফোন ব্যবহার করেন তবে এটি আসল না নকল তা বলার জন্য এর ব্যাটারি একটি ভাল উপায়। যদি আপনার আইফোনটি চার্জ দেওয়ার পরে কয়েক ঘন্টা স্থায়ী হয় তবে ধরে নিন যে আপনি হয়তো কোনো ক্লোন মডেল ব্যবহার করছেন। আইফোন যদি প্রয়োজনের চেয়ে বেশি হ্যাং হয়, তবে এটি উদ্বেগের বিষয়। কারণ আসল আইফোনটি সম্ভবত কখনও হ্যাং হয় না, তবে নকল মডেলে একটি সমস্যা রয়েছে, তাই আপনার বুঝতে হবে যে সেটি আসল না মডেলটি নকল।

Advertisements

ক্যামেরা দিয়ে আপনি যে কোনো আইফোনের বাস্তবতা জানতে পারবেন। কারণ আইফোনের ক্যামেরাকে সেরা বলে মনে করা হয় । এবং যদি আপনার মডেল থেকে ভালো মানের ছবি তোলা না যায় তাহলে বুঝতে হবে এটি একটি নকল মডেল। রিফ্রেশ রেট এমন একটি উপায় যার মাধ্যমে আপনি আইফোনের ডিসপ্লে আসল নাকি নকল তা ১ মিনিটের মধ্যে চেক করতে পারবেন। চেক করার সময় এটিত রিফ্রেশ রেট যদি খুব ধীর হয় তাহলে বুঝতে হবে মডেলটি নকল।

iPhone

রিয়ার প্যানেল চেক করা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণ নকল আইফোনে এটি প্লাস্টিকের তৈরি হয়ে থাকে। আসল মডেলে একদমই প্লাস্টিক থাকে না। পিছনের প্যানেলটি গ্লাস উপাদান দিয়ে তৈরি, যা দেখতে অনেক বেশি প্রিমিয়াম।

Advertisements